বিস্তারিত

ঈদগাঁও ছাত্রলীগের আগামী নেতৃত্বে তরুন ছাত্রনেতা খোকনই ফের আলোচনায়

আপডেট টাইম : 3 weeks ago
ঈদগাঁও ছাত্রলীগের আগামী নেতৃত্বে তরুন ছাত্রনেতা খোকনই ফের আলোচনায়

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁওঃ  কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের আগামী কমিটিতে পরিচ্ছন্ন ও তরুন ছাত্রনেতা খোকনই ফের আলোচনায়।

 

সূত্র মতে, সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনার খবরে তৃনমূলের ছাত্রনেতাদের মাঝে আশার আলো দেখা দিয়েছে। তবে ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনা হলে কারা আসছে নেতৃত্বে? এনিয়ে চলছে বৃহত্তর ঈদগাঁওয়ের প্রত্যন্ত ইউনিয়নের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক আলোচনা।

 

সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটির সভাপতি পদে তৃনমুল থেকে বেড়ে উঠা ইসলামপুরের সন্তান আনোয়ারুল আজম খোকনের নাম সর্বত্রই প্রাধান্য পাচ্ছে।

 

তৃনমূল নেতাকর্মীদের দাবী, শিক্ষা-শান্তি ও প্রগতির শ্লোগানে মুখরিত হয়ে যারা দলের চরম দূর্দিনে আন্দোলন সংগ্রামে করে রাজপথকে চাঙ্গা রেখেছিল এবং সুসময়ে-দু:সময়ে কর্মীদের পাশে থাকা শিক্ষিত ছাত্রদের হাতে দায়িত্ব অর্পন করা হউক।

 

উল্লেখ্য, আনোয়ারুল আজম খোকন,বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন নিবেদিত প্রাণ। সমুদ্র জনপদ কক্সবাজার জেলার ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে বিকশিত হওয়া এক সফল নেতৃত্ব। স্কুল জীবনে ২০০৬ সালে বিরোধী জোট সরকারে যার মিছিলে হাতে খড়ি। ১০ অক্টোবর ২০০৬ সালে নাপিত খালী উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদকে সকল কাউন্সিলরের পছন্দের প্রার্থী হয়েও সহ-সভাপতি হয়ে শিক্ষা শান্তি প্রগতির পতাকাকে সুসংহত করেন। পরে কলেজ জীবনে কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহী রামু ডিগ্রী কলেজে ভর্তি হলে,কলেজে ২০০৮ সালে রামু উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান তৎকালীন রামু উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালাহ উদ্দিন সহ-সভাপতি পদে দায়িত্ব দেন।

 

২০১২ সালে তৎকালীন  ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিবুল হক চৌধুরী রিকো ইসলামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগকে সুসংগঠিত করতে খোকনকে যুগ্ম আহ্বায়ক (৫) অন্তর্ভুক্ত করেন। দায়িত্ব পেয়ে ইসলামপুর ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে কমিটি গঠনে ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী হিসাবে শ্রম দিতে থাকেন। নিজ পরিশ্রম গুণে অল্প দিনেই ইসলামপুরে ছাত্ররাজনীতিতে পরিচিতি মুখ হয়ে উঠেন খোকন। ২০১৩ সালের অক্টোবরে ইসলামপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সরাসরি কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। তারপর থেকে জামাত শিবির অধ্যুষিত এলাকায় নাম ডাক উঠে ছাত্রলীগের খোকন।

 

২০০৮ সালে রামু ডিগ্রী কলেজে একবার শিবির কতৃক নির্যাতিত হয় পরে ২০১৪ সালে নিজ সংগঠনে ইউনিয়ন কমিটি অসাংবিধানিক ভাবে বিলুপ্তি সহ চক্ষু স্থলে পরিণত হয় ইমরুল হাসান রাশেদকে সমর্থন করার কারণে। ২০১৪ সালে রাজিবুল হক চৌধুরী রিকো কক্সবাজার সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হলে অভিভাবক হারা হয়ে পড়েন। উপজেলায় যোগ হয় তৎকালীন কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইমরুল হাসান রাশেদের অনুসারী উপ দলের সঙ্গে।

 

খোকন ও তার রাজনৈতিক সহযোদ্ধা রাশেদের পরিশ্রমে ২০১৪ সালের কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনে তাদের নেতা ইমরুল হাসান রাশেদ সাধারণ সম্পাদক হয়। রাজপথ অমানষিক পরিশ্রম কর্মীদের আস্থা অর্জন শিবির ছাত্রদল বিরোধী সংগ্রামের অগ্রসৈনিক হিসাবে সবার নজর কাড়ে ছাত্রলীগের খোকন। ২০১৪ সালে ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনে সাংগঠনিক সম্পাদক (১) নির্বাচিত হয়। উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে সাংগঠনিক কাজ করতে গিয়ে জেলা কমিটি গঠনে নাম ডাক উঠে আসে খোকনের।

 

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে উপ সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মনোনীত করা হলো তাকে। পরে উপজেলায় কয়েকটি কমিটি গঠিত হলেও নানান ষড়যন্ত্রের শিকার এ মুজিব সৈনিক। ছিলেন সংগঠনের পাশে দুর্দিনে নেতা কর্মীদের ছায়া হয়ে। বর্তমান কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম সাদ্দাম হোসাইন নির্বাচিত হওয়ায় ত্যাগী কর্মীর মূল্যায়ন হয়েছে। তার মতো একজন ত্যাগী রাজপথের পরীক্ষীত কর্মী ছাত্রলীগের খোকন। তাতেই আজ উচ্ছ্বসিত তৃণমূল।  আনোয়ারুল আজম খোকন শুধু কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের জনপ্রিয় কর্মী নই। খোকন ছাত্রলীগের অহংকার, গ্রহনযোগ্য, মেধাবী ছাত্র রাজনীতির রোল মডেল।

 

রাজনীতিতে প্রতিযোগিতা থাকা ইতিবাচক, তবে প্রতিহিংসা ও ষড়যন্ত্রের কাছে যেন খোকন হেরে না যায়। ঈদগাঁও সাংগঠনিক  উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে নতুন নেতৃত্বে খোকন নাম ডাক সর্বত্রই। পরিশেষে ঈদগাঁও উপজেলা ছাত্রলীগের নিয়মিত মেধাবী মানবিক ছাত্রনেতা আনোয়ারুল আজম খোকনকে সভাপতি করার জন্য সর্বস্তরের ছাত্রনেতাদের একান্ত দাবী।

 

বিডি প্রভাত/আরএইচ

নিউজটি শেয়ার করুন

খবর সম্পর্কিত ট্যাগ..

কক্সবাজার
মন্তব্য দিন
We'll never share your email with anyone else.

শিরোনাম