স্ত্রী বিদেশে থাকায় মেয়েকে ধর্ষণ করে বাবা

চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ
ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় মেয়েকে (১৪) ধর্ষণের অভিযোগে সৎ বাবাকে (৩৬) কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিশ্বম্ভরপুর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী। পরে বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে তাকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে বিশ্বভরপুর থানা পলিশ।

জানা যায়, মেয়েটির সৎ বাবার বাড়ি বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামে। তিনি হবিগঞ্জ জেলায় ওই মেয়েটির মায়ের সঙ্গে পরিচিত হন। এরপর দুই মেয়েসহ ওই নারীকে বিয়ে করে তিনি। বেশ কিছুদিন তাদের দাম্পত্য জীবন ভালোই চলে। এরপর সাংসারিক অভাব-অনটনে ওই নারী তার দুই মেয়েকে তাদের সৎ বাবার কাছে রেখে বিদেশ চলে যান।

মায়ের অনুপস্থিতিতে সৎ বাবা মেয়ে দুটির লালন-পালনের দায়িত্ব গ্রহণ করের। এরপর সুযোগ বুঝে বড় মেয়েটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন তিনি। এক পর্যায়ে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। ঘটনার বিষয়ে প্রতিবেশীদের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। এমন অবস্থায় মেয়েটি তার সৎ বাবার বর্বরতার বিষয়ে পাশের বাসার এক খালাকে জানায়। এরপর মেয়েটি বাদী হয়ে সৎ বাবার বিরুদ্ধে বিশ্বম্ভরপুর থানায় মামলা করে।

বিশ্বম্ভরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুরঞ্জিত তালুকদার জাগো নিউজকে জানান, বাবার বিরুদ্ধে তার সৎ মেয়ে থানায় ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করেছে। আমরা আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করেছি।

বিডি প্রভাত/আরএইচ