শিশুর হাত ঝলসে দেওয়া সেই প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত

শিশুর হাত ঝলসে দেওয়া সেই প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত

গাজীপুর সংবাদদাতা: গাজীপুরের শ্রীপুরে নিজ মাওনা গ্রামে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশু বিল্লাল হোসেন মিলনের হাত আগুনে ছ্যাঁকা দিয়ে ঝলসে দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মাইন উদ্দিনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) রাতে শ্রীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুল হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

কামরুল হাসান জানান, ওই ঘটনায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের প্রতিনিধিরা প্রাথমিকভাবে সত্যতা পান এবং তারা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। এরপর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের উপ-পরিচালকের কার্যালয় থেকে বৃহস্পতিবার সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দিলে তা কার্যকর করা হয়।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোফাজ্জল হোসেন বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে তিনি শিশুর প্রতি প্রধান শিক্ষকের অমানবিকতার সংবাদ জানতে পারেন। তাৎক্ষণিক বিস্তারিত ঘটনা জানতে উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নুরুন্নাহারকে তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে পাঠান। তিনি ঘটনাটি তদন্ত করে সত্যতা পান। পরে অভিযুক্ত শিক্ষকের কাছে বিস্তারিত জানতে চাওয়া হয়।

বরখাস্ত প্রধান শিক্ষক নিজ মাওনা গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে। তিনি উপজেলার নগরহাওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

ভুক্তভোগীর মা নাছিমা আক্তার জানান, গত সোমবার দুপুরে বাড়ির নির্মাণকাজ করছিলেন অভিযুক্ত শিক্ষক মাঈন উদ্দিন। এ সময় তার প্রতিবেশী বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশু বিল্লাল হোসেন মিলন (১০) তার নির্মাণকাজ দেখতে যায়। এক পর্যায়ে শিক্ষকের বাড়ির পাশে রাখা বালির ওপর ওঠে শিশু মিলন খেলতে শুরু করে।

তিনি বলেন, এ সময় মাঈন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তিনি শিশুটিকে মোড়ের রফিজ উদ্দিনের চায়ের দোকানের সামনে নিয়ে জ্বলন্ত লাকড়ি দিয়ে তার হাত ঝলসে দেন। শিশুটির কান্নায় স্থানীয়রা এসে লবণ ও পানি ক্ষত স্থানে লাগিয়ে তাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।

এর আগে, সোমবার নিজ মাওনা গ্রামের বুলবুল মিয়ার ১০ বছর বয়সী ছেলে বিল্লাল হোসেনকে একটি চায়ের দোকানে ডেকে নিয়ে আগুনের ছ্যাঁকা দিয়ে হাত ঝলসে দেন মাইন উদ্দিন নামে এক প্রধান শিক্ষক।

বিডি প্রভাত/জেইচ