শান্তিতে নোবেল পেলেন দুই সাংবাদিক

শান্তিতে নোবেল পেলেন দুই সাংবাদিক

অনলাইন ডেস্ক: এ বছর শান্তিতে যৌথভাবে নোবেল পেলেন ফিলিপাইনের সাংবাদিক মারিয়া রেসা এবং রুশ সাংবাদিক দিমিত্রি মুরাতভ। মত প্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় অবদান রাখার জন্য তাদেরকে এই পুরস্কার দেয়া হয়। 

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় নরওয়ের রাজধানী অসলোতে চলতি বছরের বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে নোবেল কমিটি। নোবেল কমিটির তথ্যমতে, ৩২৯ জন প্রতিযোগীর মধ্যে থেকে তাদের দুইজনকে যৌথভাবে এই পুরস্কার দেয়া হয়।

কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, গণতন্ত্র ও দীর্ঘমেয়াদী শান্তির পূর্বশর্ত হিসেবে যাকে ধরা হয়, সেই মত প্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য ২০২১ সালের নোবেল পুরস্কার উঠছে এই দু’জনের হাতে।

একই সঙ্গে মারিয়া রেসা ও দিমিত্রি মুরাতভ তাদের সেই সব পূর্বসূরিদের প্রতিনিধিত্ব করেছেন, যারা সংবাদমাধ্যমের জন্য বৈরী পরিবেশে সততা ও সাহসিকতার সঙ্গে নিজেদের দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে গণতন্ত্র, শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষায় নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন।

ফিলিপাইনের নাগরিক এবং মিডিয়া কোম্পানি র‌্যাপলারের প্রতিষ্ঠাতা মারিয়া তেসা বাকস্বাধীনতা, ক্ষমতার অপব্যবহার, সহিংসতা ও নিজ দেশে কর্তৃত্ববাদী শাসনের বিরুদ্ধে কাজ করেছেন। এখন পর্যন্ত তিনি প্রতিষ্ঠানটির প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন। সাংবাদিক ও র‌্যাপলারের প্রধান হিসেবে বাকস্বাধীনতার অকুতোভয় সৈনিক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন।

এদিকে, স্বাধীন সংবাদপত্র নোভাজা গেজেটা-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা রুশ সাংবাদিক দিমিত্রি মুরাতভ কয়েক দশক ধরে রাশিয়ায় বাক স্বাধীনতা রক্ষার জন্য কাজ করে আসছিলেন। এসময় তিনি বিভিন্ন ধরনের চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মুখোমুখী হন।

পুরস্কার ঘোষণা অনুষ্ঠানে কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, মারিয়া রেসা বরাবর নির্ভিকভাবে ফিলিপাইনে মত প্রকাশের স্বাধীনতার পক্ষে সামনে থেকে নেতৃত্ব ছিলেন। তার এবং তার প্রতিষ্ঠান র‌্যাপলারের এ বিষয়ক ভূমিকার স্ফুরণ লক্ষ্য করা যায় দেশটির বিতর্কিত মাদকবিরোধী অভিযানের সময়।

এর আগের বছর, ক্ষুধা-দারিদ্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ এবং বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখার জন্য জাতিসংঘের খাদ্য সহায়তা সংস্থা ডব্লিউএফপিকে নোবেল শান্তি পুরস্কার দেয়া হয়। ২০১৯ সালে শান্তিতে নোবেল পান ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ।

প্রতিবেশী ইরিত্রিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব ও দেশটির মধ্যে জাতিগত সংঘাত নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় এ পুরস্কার পান তিনি। এর আগে, ২০১৪ সালে শান্তিতে সর্বকনিষ্ঠ নোবেল বিজয়ীর স্বীকৃতি পান পাকিস্তানের মালালা ইউসুফজাই।

বিডি প্রভাত/জেইচ

Spread the love