লজ্জিত বাংলাদেশি প্রবাসীরাও 

লজ্জিত বাংলাদেশি প্রবাসীরাও 

অনলাইন ডেস্ক: প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উস্কানিতে ক্যাপিটল ভবনে নজিরবিহীন হামলায় যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী বাংলাদেশিরাও লজ্জা পেয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীরা বরছেন, ট্রাম্প ও তার সমর্থকদের এই আচরণ আমেরিকার কলঙ্ক। ক্ষমতালোভী ট্রাম্পের বিচার না হলে ভবিষ্যতে দেশটির গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়বে।

আবার অনেকেই বলছেন, বাংলাদেশে অবস্থানরত তাদের অনেক বন্ধু ও স্বজনও এখন তাদের টিপ্পনী কাটতে ছাড়েন না। একজন রিপাবলিকান সমর্থক হয়েও আমি এ ঘটনার নিন্দা জানাই। এতে দীর্ঘদিন ধরে লালন করে আসা আমেরিকান গণতন্ত্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে। আর ট্রাম্পের ক্রমাগত মিথ্যাচার এবং উস্কানিমূলক কথাই এ ঘটনার কারণ বলে আমি মনে করি।

একজন সরকারি কর্মকর্তা বলেন, ট্রাম্প ও তার সমর্থকদের ধারাবাহিক আচরণে তাজ্জব ও হতবাক হয়ে গেছি। রিপাবলিকান দলের চিরস্থায়ী ক্ষতি হয়ে গেল। একজন নাগরিক হিসেবে আমার গ্লানিবোধ হচ্ছে। ট্রাম্প অভিশংসিত হওয়ার মতো ফৌজদারি অপরাধ করেছেন।

আরও পড়ুন: ক্যাপিটল ভবনে হামলার ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

গণজাগরণ মঞ্চের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠক সৈয়দ জাকির আহমেদ রনি বলেন, প্রগতিশীলদের সিদ্ধান্তহীনতা এবং সময়ের সঙ্গে তাল মেলাতে না পারার কারণে রক্ষণশীল ডানপন্থিরা বাধাহীন নীরব বিপ্লবের মাধ্যমে সমগ্র পৃথিবীতেই রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে।

ক্ষমতা ধরে রাখার জন্য চরিত্রগতভাবে যে উগ্রপন্থা অবলম্বন করছে তার সবচেয়ে জঘন্য উদাহরণ আমরা দেখলাম ক্ষয়প্রাপ্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাম্রাজ্যের অধিকর্তা ডোনাল্ড ট্রাম্পের নেতৃত্বে উগ্র জাতীয়তাবাদীদের আইনসভায় হামলা করে ক্ষমতায় পুনঃঅধিষ্ঠানের বিফল চেষ্টার মাধ্যমে।

আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল হক বলেন, কাছ থেকে দেখা জঘন্য একজন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আমেরিকার ইতিহাসে একজন লোভী নির্লজ্জ মিথ্যাবাদী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বিডি প্রভাত/আরকে