রূপগঞ্জে মৃত ব্যক্তির জমি রেজিষ্ট্রি করে নেয়ার অভিযোগ

রূপগঞ্জে মৃত ব্যক্তির জমি রেজিষ্ট্রি করে নেয়ার অভিযোগ

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভোলাবো ইউনিয়নের মৃত কৃষক ইয়াছিন মিয়ার সাড়ে ৫২ শতাংশ জমি প্রতারক চক্রের সদস্যরা রেজিষ্ট্রি করে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রূপগঞ্জ পূর্ব সাবরেজিষ্ট্রি অফিসের কর্মকর্তাদের যোগসাজশে প্রতারকচক্র জালিয়াতি করে জমি রেজিষ্ট্রি করে নেয়। দলিল নং-৮৩৯৩, তারিখ-১২-০৮-২০২১ ইং। মামলা তুলে নেয়ার জন্য সন্ত্রাসীরা বাদী পক্ষকে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ২০২১ সালের ৩ আগষ্ট ভোলাবো ইউনিয়নের চারিতালুক গ্রামের কৃষক ইয়াছিন মিয়ার মৃত্যু হয়। ১০ আগষ্ট ভোলাবে ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের ১ নং বইয়ে ইয়াছিনের মৃত্যু তারিখ নিবন্ধন করা হয়। ১২ আগষ্ট জালিয়াতচক্র সাবরেজিষ্ট্রি অফিসের কর্মকর্তাদের যোগসাজশে অন্য লোককে ইয়াছিন সাজিয়ে তার মোচারতালুক মৌজার আরএস ২৪১৬ ও ২৮৬২ নং দাগের সাড়ে ৫২ শতাংশ জমি রেজিষ্ট্রি করে নেয়।

এ ব্যাপারে কৃষক ইয়াছিনের ছেলে ইউছুফ মিয়া বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ‘খ’ অঞ্চল আমলি আদালতে প্রতারণা ও আত্মসাতের অভিযোগে ৪০৬/৪২০/৪৬৫/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১/১০৯ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় প্রতারক চক্রের সদস্য ও জমির ক্রেতা মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার মীরেরগাঁও গ্রামের সামসুদ্দিনের মেয়ে খালেদা আক্তার (৪২), চারিতালুক গ্রামের হামজত আলীর ছেলে আব্দুর রউফ ভুট্টু (৪১), মুন্সিগঞ্জ সদরের লইয়াবাড়ি গ্রামের ছবদর আলীর ছেলে  সিরাজ মিয়া (৩৮), নরসিংদীর পলাশ থানার টেকপাড়া গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩৯), রূপগঞ্জের চারিতালুক গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে মনির হোসেন (৩৫) ও দলিল লেখক ওসমানকে (৪৩) আসামি করা হয়েছে। এরপর থেকে মামলা তুলে নিতে প্রতারক চক্রের নিয়োজিত সন্ত্রাসীরা ইয়াছিনের পরিবারের সদস্যদের প্রাণনাণের হুমকি দিয়ে আসছে। পুলিশকে জানিয়েও তারা কোন সুফল পাচ্ছে না।

এছাড়া প্রতারক চক্রের সদস্যরা ভোলাবো গ্রামের মহসিন ভুঁইয়ার ৩৯ শতাংশ জমি, দেলোয়ার হোসেন ও আমানউল্লাহর সাড়ে ১৬ শতাংশ জমি নানা কৌশলে আত্মসাতের পায়তারা করছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। রূপগঞ্জ পূর্ব সাবরেজিষ্টার মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, মৃত ব্যক্তির জমি রেজিষ্ট্রি করা আইনগত দন্ডনীয় অপরাধ। এ ঘটনার সঙ্গে আমাদের কেউ জড়িত থাকলে ছাড় দেওয়াা হবে না। সুষ্ঠু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রূপগঞ্জ থানার ওসি এএফএম সায়েদ বলেন, এঘটনায় আদলতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। প্রতরণা ও আত্মসাৎকারীদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

বিডি প্রভাত/আরএইচ