রুবেল মন্ডলের সিসি ক্যামেরা কার্যক্রম প্রশংসনীয়: ওসি শাহ আলম

রুবেল মন্ডলের সিসি ক্যামেরা কার্যক্রম প্রশংসনীয়: ওসি শাহ আলম

হাজী বাবলু, টঙ্গী: গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পশ্চিম থানাধীন তিলারগাতি ও বড়দেওরা এলাকার উত্তর-পশ্চিম সীমানা পর্যন্ত এলাকার বিভিন্ন রাস্তা ও অলিগলিতে প্রায়ই মাদক কারবার, মাদক সেবন, ছিনতাই, কিশোর গ্যং, ইভটিজিংসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড দিন দিন বেড়েই চলছে। এতে সামাজিক অবক্ষয় চরম পর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এলাকার কয়েকজন প্রভাবশালী নেতাদের ছত্রছায়ায় এলাকার ও বহিরাগত কিছু সন্ত্রাসী প্রায়দিনই এলাকার বিভিন্ন শ্রমজীবী ভাড়াটিয়াদের রাস্তায় আটক করে বিভিন্ন দেশীয় ও বিদেশি অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে সর্বস্ব লুট করে নিয়ে যায়। অতঃপর নিত্যদিনের বহু সমস্যার অবসান ঘটিয়ে তিলারগাতি ও বড়দেওড়া এলাকার শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা ও নিরাপত্তায় বিরল ভূমিকা রাখছে তিলারগাতি গ্রামের বিশিষ্ট সমাজসেবক ও উদ্যোক্তা রুবেল মণ্ডলের নিজ উদ্যোগে বসানো সিসি ক্যামেরা।

গত ১০ মে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (অপরাধ দক্ষিণ) ইলতুৎ মিশ তিলারগাতি এলাকার ডিজিটাল সিসি ক্যামেরা কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। নিজ এলাকার মানুষের নিরাপত্তায় রুবেল মন্ডলের ডিজিটাল সিসি ক্যামেরা কার্যক্রমকে প্রশংশনীয় উদ্যেগ বলে সাধুবাদ জানিয়েছে স্থানীয় সচেতন মহল।

ডিজিটাল সিসি ক্যামেরা কার্যক্রমের বিষয়ে রুবেল মণ্ডল বলেন, বাংলাদেশের অন্যতম শিল্পাঞ্চল হিসেবে পরিচিত গাজীপুরের টঙ্গী। এখানে বেশ কয়েক বছরে গড়ে উঠেছে নতুন নতুন অসংখ্য শিল্পপ্রতিষ্ঠান। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের শ্রমজীবী মানুষ জীবিকার তাগিদে বাসা বুনছে টঙ্গীতে। জীবিকার তাগিদে অনেকে জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সাথে। এরা চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, খুনসহ বিভিন্ন মাদক কারবারের সাথে জড়িয়ে পড়ছে।

এলাকার মেয়েদের সাথে ইভটিজিংসহ বিভিন্ন অশোভনীয় আচরণ করত। মাদকের টাকার জোগান দিতে খুন করতেও এদের হাত কাঁপে না। অথচ এলাকার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আমি তিলারগাতি গ্রাম ও আশপাশের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ৫০টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছি।

তিনি ‍আরো বলেন, সিসি ক্যামেরা স্থাপনে এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে সংঘটিত বিভিন্ন অপরাধের চিত্র বের হয়ে এসেছে। পুলিশ প্রশাসন দ্রুততার সাথে অপরাধীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে পারছে। ফলে অপরাধীরা ভয়ে এই গ্রামে কোনো প্রকার অপরাধ সংঘটিত করার সাহস হারিয়ে ফেলে। আমি সিসি ক্যামেরাকে নিরাপত্তার ডিজিটাল চোখ বলে মনে করি। সিসি ক্যামেরা বদলে দিয়েছে তিলারগাতি গ্রামের বর্তমান চিত্র। সবাই উদ্যোগ নিয়ে নিজ নিজ বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করলে গড়ে উঠবে নিরাপদ ডিজিটাল বাংলাদেশ।

এ বিষয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম বলেন, ডিজিটাল সিসি ক্যামেরা কার্যক্রমে তিলারগাতি ও আশপাশের এলাকায় অপরাধপ্রবণতা অনেকটাই কমে গেছে। এই কার্যক্রমের মাধ্যমে দ্রুত অপরাধীদের চিহ্নিত করা সম্ভব। তাই আপনারা নিজ বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করার চেষ্টা করব। আর রুবেল মন্ডলের সিসি ক্যামেরা কার্যক্রম অবশ্যই প্রশংসনীয় উদ্যোগ।

বিডি প্রভাত/জেইচ