মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে বৃদ্ধ মায়ের মৃত্যু

মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে বৃদ্ধ মায়ের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার এলাকার কুতুবপুর গ্রামের মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়ের ইটের আঘাতে বৃদ্ধ মায়ের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এর আগে রাত ১০ টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শিমুলবাক ইউনিয়নের আক্তাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শফিকুন নেছা আক্তাপাড়া গ্রামের ইস্কন্দর আলীর স্ত্রী। তার মেয়ে হালিমা বেগম (২২) ২ সন্তানের জননী ও ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শফিকুন নেছার মেয়ে হালিমা বেগম (২২) বছরের বেশির ভাগ সময়ই মানসিক ভারসাম্যহীন থাকেন। ৩-৪ বছর আগে হালিমা বেগমকে জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার কামলাবাজ গ্রামের আলী নুরের সাথে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর বেশির ভাগ সময়ই মানসিক ভারসাম্যহীন থাকায় হালিমা বেগম তার বাবার বাড়ি আক্তাপাড়া গ্রামে বসবাস করে আসছিলেন।

সোমবার রাত ১০টার দিকে শফিকুন নেছা মেয়ে হালিমা বেগমকে খাবার দিতে যান। এসময় লোহার শেকলে বাঁধা হালিমা পাশে থাকা ইট দিয়ে তার মা শফিকুন নেছার মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করেন। এতে শফিকুন নেছার মাথার মগজ বেরিয়ে আসে।

পরিবারের লোকজন শফিকুন নেছাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে রাত ২টার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে সুনামগঞ্জ সদর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এ

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি কাজী মোক্তাদির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিডি প্রভাত/আরএইচ

Spread the love