বিয়ের ব্যাপারে পরিবারকে রাজি করাতে না পেরে অভিমানে কিশোরের আত্মহত্যা

প্রেমিকার সঙ্গে বিয়ে না দেয়ায় অভিামনে যুবকের আত্নহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে বিয়ের ব্যাপারে পরিবারকে রাজি করাতে না পেরে মা-বাবা ওপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেছেন সোহেল রানা (১৭) নামের এক কিশোর।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে বাড়ির পার্শ্ববর্তী জামগাছের ডালে গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃত রানা উপজেলার অমরপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বাসুদেবপুর গ্রামের দবিরুল ইসলামের ছেলে।

৬নং অমরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হেলাল সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সোহেল রানা বেশ কয়েক মাস ধরে পরিবারের কাছে বিয়ে করবে বলে বায়না ধরে। বয়স অল্প হওয়ায় তাকে বিয়ে দিতে অস্বীকৃতি জানান পরিবারের লোকজন। পরে বুধবার কাজে শেষে রাতে বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকজন খোঁজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী জামগাছের ডালে গলায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় রানার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান তারা। খবর পেয়ে রাতেই চিরিরবন্দর থানা পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে।

চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার বলেন, মূলত বাবা মায়ের ওপর অভিমান করে সে আত্মহত্যা করেছে বলে মনে হচ্ছে। সোহেল রানার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। রাতেই থানায় একটি ইউডি (অপমৃত্যু) মামলা করা হয়েছে।

বিডি প্রভাত/আরএইচ