বাঁচানো গেল না সৎ মায়ের নির্যাতনের শিকার শিশু মরিয়মকে

বাঁচানো গেল না সৎ মায়ের নির্যাতনের শিকার শিশু মরিয়মকে

গাজীপুর সংবাদদাতা: বাঁচানো গেল না সৎ মায়ের নির্যাতনের শিকার শিশু মরিয়মকেবাঁচানো গেল না সৎ মায়ের নির্যাতনের শিকার আড়াই বছর বয়সী শিশু মরিয়মকে।

গতকাল রোববার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে এক মাস চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা যায় সে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, নির্যাতনে পায়ুপথ ও যৌনাঙ্গে সংক্রমণ তৈরি হয়ে তা ছড়িয়ে পড়েছিল মরিয়মের পুরো শরীরে। চিকিৎসকরা তার অস্ত্রোপচারও করেছিলেন।

শিশু মরিয়ম আক্তারের বাবা দুবাই প্রবাসী। তার প্রথম স্ত্রীর ঘরে জন্ম হয় শিশু মরিয়মের। যখন শিশুটির বয়স চারমাস, তখন দুবাই প্রবাসী আলিফা আক্তার রিপার সঙ্গে মোস্তফা কামাল পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়লে প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ডিভোর্স হয়। এসময় আলিফা আক্তারকে বিয়ে করে দ্বিতীয় সংসার শুরু করেন মোস্তফা কামাল। আর শিশু মরিয়ম সৎ মা আলিফা আক্তারের কাছেই থাকতো।

অভিযোগ রয়েছে এই সৎ মা নিজ নামে বাড়ি লিখে নিতে শিশুটিকে যৌন নির্যাতন শুরু করেন। তিনি বিভিন্ন রাসায়নিক প্রয়োগ করে শিশুটির পায়ুপথ ও যৌনাঙ্গ ক্ষত-বিক্ষত করেন। পরে অবস্থা গুরুতর হয়ে পড়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন স্বজনরা।

এ ঘটনায় শিশুর দাদা আফাজ উদ্দিন বাদী হয়ে তার সৎ মায়ের বিরুদ্ধে ১২ আগস্ট শ্রীপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পরে তা মামলা হয়। এরপর ১৫ আগস্ট অভিযুক্ত সৎ মা আলিফা আক্তার রিপাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি বর্তমানে কারাগারে।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ বলেন, অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিশুর মৃত্যুর খবর তিনি পেয়েছেন। এখন নিহতের ময়নাতদন্ত করা হবে। সে অনুযায়ী দ্রুত মামলার অভিযোগপত্র দেওয়া হবে।

বিডি প্রভাত/জেইচ