প্রবেশদ্বারের ওয়ার্ডগুলোকে বাদ দিয়ে পৌরসভা নয়

প্রবেশদ্বারের ওয়ার্ডগুলোকে বাদ দিয়ে পৌরসভা নয়

ফারুক আহমদ, বিশ্বনাথ: নবগঠিত সিলেটের বিশ্বনাথ পৌরসভায় পৌরসভার প্রবেশদ্বারের ওয়ার্ডগুলোকে অন্তর্ভূক্তি ও পৌরবাসীর কাঙ্খিত সেবা নিশ্চিত করার দাবীতে রোববার রাতে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌর শহরের একটি অভিজাত হোটেলে বিশ্বনাথ পৌরসভা বাস্তবায়ন পরিষদের উদ্যোগে মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তারা বলেছেন, উন্নয়ন আমাদের অধিকার, আমাদের এ অধিকার আমাদেরকেই আদায় করে নিতে হবে। আমাদের ধর্মীয় ও রাজনৈতিক পথ ভিন্ন থাকতে পারে, কিন্তু এলাকার স্বার্থে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ থাকতে হবে।

বিশ্বনাথ পৌরসভার কার্যক্রমের বিষয় উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশ যখন উন্নয়নে ভাসছে, ঠিক তখনই আমাদের বিশ্বনাথ এক অবহেলিত এলাকা হয়ে ডাস্টবিনের মতো পড়ে রয়েছে। পৌর এলাকার প্রতিটি রাস্তায় গর্ত হয়ে পুকুর হয়ে গেছে। দেখলে মনে হয় যেন বিশ্বনাথে কোন জনপ্রতিনিধি নাই।

বক্তারা আরো বলেন, একটি স্বার্থন্বেষী মহলের ইন্ধনে বিশ্বনাথের প্রবেশদ্বারের (সদরের ১-২ কিলোমিটারের মধ্যে থাকা) ওয়ার্ডগুলো পৌরসভায় অর্ন্তভুক্ত না করে ৫-৭ কিলোমিটার দূরের অন্য ইউনিয়নের ওয়ার্ডগুলোকে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক ও হতাশার।

অবিলম্বে পৌরসভায় বিশ্বনাথের প্রবেশদ্বারের ওয়ার্ডগুলোকে অন্তভূক্ত করে পৌরবাসী কাঙ্খিত সেবা প্রদান শতভাগ সচ্চতা ও জবাবদিহিতা মাধ্যমে বাস্তবায়নের দাবী জানান বক্তারা।

মতবিনিময় সভায় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা ১৯৯৬ সালে নির্দলীয়ভাবে ‘বিশ্বনাথ পৌরসভা বাস্তবায়ন পরিষদ’ গঠন করি। এরপর নানান আন্দোলন আর দাবির প্রেক্ষিতে ১৯৯৭ সালে রামসুন্দর সরকারি অগ্রগামী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক অনুষ্ঠানে তৎকালীণ পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রয়াত আব্দুস সামাদ আজাদ বিশ্বনাথ উপজেলাকে ‘পৌরসভা’ হিসেবে ঘোষণা দিয়ে যান। সেই ঘোষণার দীর্ঘদিন পর ২০১৯ সালে তা বাস্তবায়ন।

কিন্তু বিগত দুই বছরে এখন পর্যন্ত প্রশাসনিক কাজ ছাড়া আর কোন দৃশ্যমান কাজ চোখে পড়ছে না। পৌরসভার উন্নয়ন কাজে যারা স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম-দূর্ণীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করছে তাদের বিরুদ্ধে আজ থেকে সোচ্চার থাকবে এ পরিষদ।

বিশ্বনাথ পৌরসভা বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক যুক্তরাজ্য প্রবাসী সামসাদুর রহমান রাহীনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব আলতাব হোসেনের পরিচালনায় মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন সিলেট বিভাগ বাস্তবায়ন ছাত্র পরিষদ বিশ্বনাথ উপজেলার সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট তপন কুমার দাশ, অলংকারী ইউনিয়নের নিকাহ ও তালাক রেজিষ্ট্রার কাজী মাওলানা আব্দুল ওয়াদুদ, পৌরসভা বাস্তবায়ন পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক জসিম উদ্দিন জুনেদ, তোফয়েল আহমদ, ব্যবসায়ী জামাল উদ্দিন, যুব নেতা শাহ আলম খোকন, মোহাম্মদ আমির আলী, সোহেল তালুকদার, ফয়জুল ইসলাম জয়, রুহেল খান, ইকবাল আহমদ, জয়নাল আবেদীন, তুরণ চৌধুরী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠক কামাল আহমদ কামাল, যুবনেতা জাবেদ আহমদ, শংকর জ্যোতি দে, মাহবুবুর রহমান, রাজন আহমদ অপু, ছায়েদ আহমদ, হাবিবুর রহমান, হাবিব আহমদ, শিপন মর্তুজা, সেলিম আহমদ প্রমুখ। অনুষ্ঠান শেষে বিশ্বনাথ পৌরসভা বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক কমিটিকে বিলুপ্ত করে বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক সামসাদুর রহমান রাহীনকে সভাপতি ও আলতাব হোসেনকে সাধারণ সম্পাদক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি ঘোষণা করেন সাবেক ছাত্রনেতা অ্যাডভোকেট তপন কুমার দাশ।

বিডি প্রভাত/জেইচ