প্রধানমন্ত্রী নারীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী নারীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন: ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

আব্দুল কাদের, টঙ্গী প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন
দিবস উপলক্ষে টঙ্গীর পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজ মাঠে আজ বৃহস্পতিবার বিকালে টঙ্গী থানা মহিলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে কম্বল ও স্বাস্থ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

টঙ্গী পশ্চিম থানা মহিলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক আয়েশা আক্তার আশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নে এবং নারীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। এর আগে কোন সরকারই নারীদের উন্নয়নে কাজ করেনি।

আজকে নারীরা শিক্ষায়, কর্মস্থান এবং আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে গড়ে উঠতে পারে সে জন্য বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আজকে আমাদের সকল সেক্টরগুলোতে নারীদের ক্ষমতায়ন প্রধান করেছেন। সে জন্য আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।

আরও পড়ুন: সত্য বলে যাব, মৃত্যুর পরোয়া করি না: কাদের মির্জা

তিনি বলেন, আজকে এই টঙ্গী পাইলট স্কুলের চেহারাটাই পাল্টে দিয়েছি। ঝরাজীর্ণ এই স্কুলটিকে একটি সুসজ্জিত ভবন হিসেবে তৈরি করে দিয়েছি। এছাড়াও টঙ্গী ও গাজীপুরে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, হাসপাতালসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে উন্নয়নমূলক কাজ করা হচ্ছে। আমাদের এই উন্নয়নমূলক কাজ অব্যাহত রয়েছে।

আমার বাবা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার গাজীপুরের মেহনতি মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তার সন্তান হিসেবে আমিও আমার বাবার মতো মেহনতি মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাবে।

আজকে বর্তমান সরকারের দুই বছর। এই দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে গাজীপুর মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগ অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, গাজীপুর মহানগর  আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী ইলিয়াস, টঙ্গী পাইলট স্কুল এন্ড গার্লস কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, অধ্যক্ষ মো.আলাউদ্দিন মিয়া।

৫৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন মোল্লা, শিক্ষক প্রতিনিধি আবু জাফর আহমেদ, মহানগর মহিলা আওয়ামীলীগের সহ সভপতি হাজী শিরীন শহীদ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজমা হোসেন প্রমুখ।

বিডি প্রভাত/আরকে