পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শাশুড়ীকে পিটিয়ে হাত পা ভেঙ্গে দেওয়া মামলায় ছেলের বউ ও নাতী ছেলে গ্রেফতার

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শাশুড়ীকে পিটিয়ে হাত পা ভেঙ্গে দেওয়া মামলায় ছেলের বউ ও নাতী ছেলে গ্রেফতার

হাজী বাবলু, টঙ্গীঃ জমি জমা সংক্রান্ত বিষয়ের জের ধরে গাজীপুর মহানগরের কুনিয়া তারগাছ এলাকায় লোহার রড ও দা দিয়ে পিটিয়ে শাশুড়ীর দুই পা ভেঙ্গে দেওয়া মামলায় ছেলের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী নাছিমা আক্তার লিলি(৪৫) ও নাতি ছেলে শাকিরুজ্জামান অর্ক(১৮) কে গ্রেফতার করেছে গাছা থানা পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে ও মামলার বাদী মোঃ শহিদুজ্জামান সুমন জানান, আমার বড় ভাইয়ের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী নাছিমা আক্তার লিলি(৪৫), তার ছেলে আশিকুজ্জামান দীপ্ত(১৯), আরেক ছেলে শাকিরুজ্জামান অর্ক(১৮) দীর্ঘদিন যাবৎ আমার মা হাজিয়ানী মোছাঃ জমিলা খাতুন(৬০) এর সাথে জমি জমা সংক্রান্ত বিষয়ে শত্রুতা করে আসতেছে। উক্ত শত্রতার জের ধরে গত ৬/২/২০২১ইং বেলা আনুমানিক ১২টার দিকে আমার মা হাজিয়ানী জমিলা খাতুন(৬০) বাসার সামনে মারকো সিএনজি পাম্পের পাশে দাড়িয়ে থাকাকালে উল্লিখিত আসামীরা উক্ত সিএনজির পাম্পের সামনে এসে আমার মাকে এলোপাথারী ভাবে কিলঘুষি মারতে থাকে এসময় আমার মাকে নিলাফোলা জখম করে টেনেহেচরে তাদের বসতবাড়ীর একটি কক্ষে নিয়ে আটক করে পুনরায় মারপিট করতে থাকে।

এসময় ১নং আসামী নাছিমা আক্তার লিলি একখানা দাড়ালো দা দিয়ে আমার মাকে পঙ্গু করার উদ্দেশ্যে তার ডান পায়ের নীচে সজোরে কোপ মেরে রক্তাত্ত জখম করে আমার মা এসময় আতঃচিৎকার করা অবস্থায় মেঝেতে লুটিয়ে পড়লে আসামী শাকিরুজ্জামান অর্ক আমার মায়ের পরিহিত ওড়না গলায় পেচিয়ে তাঁকে শ্বাষরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় আমার মা জোরাজুরি করে প্রান রক্ষার্থে ছুটে রক্ষা পায়। এসময় আমার মা পালিয়ে আসার সময় ২নং আসামী আশিকুজ্জামান দীপ্ত লোহার রড দিয়ে আমার মায়ের দুই পায়ের হাটুর নীচে হাড়ভাঙ্গা জখম করে।

এসময় মায়ের নিকট ব্যাগে থাকা নগদ ১ লক্ষ টাকা কেড়ে নেয়, এসময় মায়ের আতঃচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে উল্লিখিত আসামীরা পালিয়ে যায়, এসময় লোকজনের সহায়তায় মাকে নিয়ে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকগণ তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা করে সাথে সাথে পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য রেফার করে।

এই ঘটনায় গত ০৭/০২/২০২১ইং তারিখ গাছা থানায় ১টি মামলা দায়ের করেন হাজিয়ানী জমিলা খাতুনের ছেলে মোঃ শহিদুজ্জামান সুমন যার নং-০৭। এই মামলা হওয়ার পর গাছা থানার এসআই রাশেদ অভিযান চালিয়ে নিজ বাসা থেকে মামলার ১নং আসামী ছেলের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী নাছিমা আক্তার লিলি(৪৫), ও ছোট ছেলে মামলার ৩নং আসামী শাকিরুজ্জামান অর্ক(১৮)কে আটক করে থানায় নিয়ে এসে গতকাল কোর্টে প্রেরণ করে।

এদিকে হাজিয়ানী জমিলা খাতুনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে তার ছোট ছেলে শহিদুজ্জামান সুমন জানান।

বিডি প্রভাত/আরএইচ