পরিবারের অমতে পালিয়ে বিয়ে করা মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

পরিবারের অমতে পালিয়ে বিয়ে করা মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চুয়াডাঙ্গায় পরিবারের অমতে ছেলে পালিয়ে বিয়ে করায় ছেলের প্রতি অভিমান করে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন মা।

গতকাল সোমবার (৪ জানুয়ারি) এ ঘটনা ঘটেছে। বর্তমানে ওই নারী চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

ওই নারীর স্বামী মোজাফর আলী ওরফে জহুরুল ইসলাম জানান, আমার ছেলে শোভন মিয়ার সঙ্গে আমার এক সাবেক ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে কিছুদিন ধরে। বিষয়টি আমি জানতে পারলে ছেলেকে পড়াশোনা শেষ করার জন্য তাগিদ দেই। কিন্তু গত ১৫ দিন আগে হঠাৎ করেই শোভন মিয়া বাড়ি থেকে রাগ করে চলে যায়। অনেক খোঁজাখুঁজি করার পরেও কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে পরিবারের এক সদস্যের সঙ্গে শোভনের মাঝে মাঝে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যোগাযোগ হতো। হঠাৎ করে একদিন শোভন বলে সে বিয়ে করেছে। এদিকে বিষয়টি নিয়ে তার পরিবার ও বিশেষ করে আমার স্ত্রী বেশ উদ্বিগ্ন ছিল।

তিনি আরও বলেন, গতকাল রোববার সকালের দিকে আমি স্কুলে আসার পর আমার স্ত্রী হঠাৎ ফোন করে বলে, আমাকে ক্ষমা করে দিও। আমি তৎক্ষণাৎ দ্রুত বাসায় গিয়ে দেখি সে বিষ পান করেছে। দ্রুত তাকে সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করি। বর্তমানে তার অবস্থা ভালো।

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ছড়ানো তার পারিবারিক কলহের বিষয়ে জানতে চাইলে, তিনি বলেন ওই ধরনের কোনও ঘটনা নেই। বিষয়টি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত। তাছাড়া আমার ছেলে শোভন মিয়া বর্তমানে তার চিকিৎসাধীন মায়ের পাশে আছে। ইচ্ছাকৃত-ভাবে কেউ এ ধরনের গুজব ছড়াচ্ছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সোহানা আহমেদ বলেন, এক নারী বিষপান করে মুমূর্ষু অবস্থায় সকালে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আসেন। প্রথমে তার শরীরের পাকস্থলী থেকে সেটি ওয়াশ করা হয়েছে। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।

বিডি প্রভাত/আরএইচ

Spread the love