দেড়বছর পর খুলেছে ঈদগাঁওর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, উৎফুল্ল শিক্ষার্থীরা

দেড়বছর পর খুলেছে ঈদগাঁওর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, উৎফুল্ল শিক্ষার্থীরা

এম আবু হেনা সাগর, ঈদগাঁও: দীর্ঘ দেড় বছর পর খুলেছেন কক্সবাজারের ঈদগাঁওর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। স্কুল আঙ্গিনায় আসতে পেরে উৎফুল্ল হয়ে পড়েন শিক্ষার্থীরা।

১২ সেপ্টেম্বর থেকে শ্রেণী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য পূর্বে থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত করার নির্দেশনা ছিল। সে অনুযায়ী ব্যাপক প্রস্তুতিও নেওয়া হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভেতরে বাইরেসহ শ্রেণিকক্ষও পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়। 

রবিবার সকালে দেখা যায়, ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল ৮টা থেকে শিক্ষার্থীরা আসতে শুরু করে। গেইট সংলগ্ন প্রবেশ পথে তাদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা, মাস্ক বিতরন ও দুই হাতে জীবানুনাশক স্পে ছিটানোর পর বিদ্যালয়ে যেতে দেওয়া হচ্ছে।

এসময় প্রধান শিক্ষিকা খুরশেদুল জন্নাতের নেতৃত্বে কজন শিক্ষক উপস্থিত ছিল। দীর্ঘকাল পর স্কুলের আঙ্গিণা দেখে শিক্ষার্থী আনন্দমুখর। শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং সহপাঠিদের সাথে দেখা হয় বহুদিন পর। ঈদগাহ আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের প্রবেশ মুখে শিক্ষার্থীদের করণীয় শীর্ষক একটি ব্যানার চোখে পড়ে। 

করোনার ফলে বিগত বছরের ১৭ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। সংক্রমণ কিছুটা কমে আসায় প্রথম ধাপেই সব স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন রবিবার থেকে।

বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আগমনকে ঘিরে ঈদগাঁওর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাজসাজ রব বিরাজ করছে। বিশেষ করে, সকাল ৮টার পর থেকে শিক্ষার্থীরা স্কুল ড্রেস পরে পিতা কিংবা  ভাইদের হাত ধরে উপস্থিত হতে দেখা যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী জানান, বহুদিন পর বিদ্যালয় খোলায় শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদেরকে ধন্যবাদ। বিদ্যালয়ে আসতে পেরে ভাল লেগেছে।  

ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা খুরশিদুল জন্নাত জানান, দীর্ঘসময় পর স্কুল খোলায় ছাত্রছাত্রীরা উৎফুল্ল। প্রবেশ মুখে তাপ মাত্রা পরীক্ষা, শিক্ষার্থীদের হাতে মাস্কসহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে বিদ্যালয়ে ঢোকানো হয়েছে।

বিডি প্রভাত/জেইচ