ত্রাণের পঁচা আলু ইউএনও অফিসে ফেরত দিলেন ভানু রাম

ত্রাণের পঁচা আলু ইউএনও অফিসে ফেরত দিলেন ভানু রাম

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের চিলমারীতে দূর্গাপুজা উপলক্ষ্যে দরিদ্র হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মাঝে ত্রাণ বিতরন করেছে উপজেলা প্রশাসন। পঁচা আলু, চাল, সহ নিম্ন মানের ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করায় ত্রাণ গ্রহিতারা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের কালির পাট মন্দিরের পূজারী ক্ষোভে তাকে দেয়া পচা আলু ইউএনও অফিসে ফেরত দিয়ে গেছেন।

এদিকে অভিযোগের সত্যতা পেয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত আলী সরকার বীরবিক্রম নিম্ন মানের ত্রাণ সামগ্রী বিতরন না করে ত্রাণের মান যাচাই পূর্বক খাবার উপযুক্ত ত্রাণ বিতরন করার নির্দেশ দিয়েছেন।

জানা গেছে, কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় এ বছর ৩২টি মন্ডপে দূর্গাপুজা পূজা উদযাপন হচ্ছে। দূর্গাপুজা উপলক্ষ্যে কর্তৃপক্ষের সিন্ধান্ত মতাবেক হতদরিদ্র হিন্দু পরিবারের মাঝে তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে রাজস্ব খাতের টাকা ব্যয় করে চাল, ডাল, তেল, আলুসহ বিভিন্ন ত্রাণ সামগ্রী দেয়ার সিন্ধান্ত নেয়া হয়। সিন্ধান্ত মতাবেক সোমবার উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে হলরুমে ১৬০টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরন শুরু হয়।

ত্রাণ পেলেও খুশি হতে পারেনি ত্রাণ নিতে আশা পরিবার গুলো। রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের রানু রানী, সুধা রানী, মুকুল চন্দ্র অভিযোগ করে বলেন, বহুদুর থেকে আসলাম ত্রাণ নিতে কিন্তু পঁচা চাল, পঁচা আলু নিম্ন মানের তেল ( সোয়াবিন তেল না দিয়ে পামওয়েল দেয়া হয়) সহ ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে কি করমো।

তারা আরো বলেন, হামরা গরীব বলে কি মানুষ নই। ভানু রায় (৭০) বয়সের ভারে ঠিক মতো চলতে পারেনা, নিম্ন মানের চাল আর পচা আলু নিয়ে পড়েছেন বিপাকে, আলু গুলো উপজেলা চেয়ারম্যানকে দেখিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এই আলু আর চাইল খাইলে তো মুই অসুস্থ হয়্যা পরিম। পরে ভানু দাস ও লাল চরন, আলু গুলো ইউএনও অফিসে রেখেই  বাড়ি চলে যান।

একই অভিযোগ বিজো বালার নিম্ন মানের চাল আর পচা আলু, সয়াবিন এর পরির্বতে পামওয়েল দিয়েছে এছাড়াও প্যাকেটজাত ঠিক মতো না করায় চাল আর ডাল এক সাথে মিশে গেছে।

ত্রাণে নিম্ন মানের চাল ও পঁচা আলু স্বীকার করে উপজেলা পুজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি ডাক্তার সলিল কুমার বর্ম্মণ দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, এটি বড় দুঃখের বিষয়। হত দরিদ্র হিন্দু পরিবার গুলোর মাঝে নিম্ন মানের ত্রাণ সামগ্রী দেয়া হচ্ছে।

কথা হলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শওকত আলী সরকার বীর বিক্রম বলেন, নিম্ন মানের চাল ও পচা আলু রয়েছে তা জানতে পেরে ত্রাণ বিতরন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ত্রাণের মান যাচাই করে বাকিদের মাঝে বিতরন করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) মাহবুবুর রহমান বলেন, ত্রাণে নিম্ন মানের চাল ও সামগ্রী থাকার কথা নয় বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিডি প্রভাত/জেইচ

Spread the love