চলছে বিদ্যালয় পরিষ্কার, শুধু শিক্ষার্থীদের অপেক্ষা

চলছে বিদ্যালয় পরিষ্কার, শুধু শিক্ষার্থীদের অপেক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর চালু হতে যাচ্ছে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান। নওগাঁয় বিদ্যালয়গুলোকে পাঠ উপযোগী করতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ নিয়ে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

নওগাঁ সদর উপজেলার তিলকপুর ইউনিয়নের নগর কুসুম্বী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, দপ্তরি আলমগীর কবিরসহ দুজন বিদ্যালয় ধোয়া-মোছার কাজ করছেন। এই বিদ্যালয়ে একটি অফিস কক্ষসহ আটটি কক্ষ রয়েছে। যেসব কক্ষ পরিষ্কার করা হয়েছে তা ফ্যানের বাতাসে শুকানো হচ্ছে। পাশেই নগর কুসুম্বী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়। সেখানেও চলছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ।

নগর কুসুম্বী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক ওমর ফারুক বলেন, আমার মেয়ে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী। দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকায় ঠিকমতো পড়াশোনাই করেনি। তারপরও কয়েকদিন দেখলাম অনলাইনে ক্লাস করেছে। কয়েকবার স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েও তা সম্ভব হয়নি। এবার দেখা যাক কি হয়।

একই বিদ্যালয়ের আরেক অভিভাবক আব্দুল মান্নান বলেন, আমার মেয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ছে। স্কুল বন্ধ থাকায় পড়াশোনা একেবারে বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। মূল্যায়নের জন্য স্কুল থেকে কিছু প্রশ্নপত্র সরবরাহ করা হয়েছিল। আর এভাবে যদি চলতে থাকে তাহলে শিক্ষার ১২টা বাজবে। শুনছি স্কুল চালু হবে। তবে ছেলেমেয়েরা কোনো ধরনের সমস্যায় যেন না পড়ে সেজন্য কর্তৃপক্ষ যেন পদক্ষেপ নেয়।

নগর কুসুম্বী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরি আলমগীর কবির বলেন, সকাল থেকে হুইল পাউডার দিয়ে বিদ্যালয় ধুয়ে মুছে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। বিদ্যালয় দ্রুত পরিষ্কার করতে সঙ্গে একজন শ্রমিকও নেওয়া হয়েছে।

নগর কুসুম্বী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনজাতুন নেসা জানান, বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৬৭ জন। বিদ্যালয়ের চেয়ার, টেবিল, বেঞ্চ, মেঝে, দেয়াল, দরজা, জানালা আশপাশ ব্লিচিং পাউডার দিয়ে ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করা হয়েছে। তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রক, স্যানিটাইজার, স্যাভলন, সাবান, বালতি ও মগসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী কেনা হয়েছে। বিদ্যালয়ে পাঠদান চালু করতে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

বিডি প্রভাত/আরএইচ