ইবি শিক্ষার্থীর কিডনি নষ্ট: দরকার ২০ লক্ষ টাকা

ইবি শিক্ষার্থীর কিডনি নষ্ট: দরকার ২০ লক্ষ টাকা

দিদারুল ইসলাম রাসেল, ইবি প্রতিনিধি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ইংরেজি বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের মেধাবী শিক্ষার্থী সোহেল রানার দুইটা কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে। আপনাদের সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। ফেসবুকে তার পোষ্ট হুবহু তুলে ধরা হলোঃ

“প্রিয় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার, বন্ধু, সহৃদয়বান দেশবাসী, আমি সোহেল রানা গ্রামঃ গোপীনাথপুর, উপজেলাঃ হরিনাকুন্ডু, জেলাঃ ঝিনাইদহ। আমি ইবির ২০১৩-১৪ সেশনের ইংরেজি বিভাগের ছাত্র। আমি একটি নিন্ম-সাধারণ পরিবারের ছেলে। ২০১১ সালে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ -৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। এবং এই রেজাল্ট হয় আমার গ্রামের কোন ছাত্রের সর্বপ্রথম জিপিএ -৫ পাওয়া।

আমার সব বন্ধু বাইরে লেখাপড়া করতে যায়।কিন্ত আমি গ্রামেই থেকে যাই। কারণ, আমার পরিবারের সাধ্য ছিল না বাইরে লেখাপড়া করার খরচ বহন করার। কোনমতে সরকারি লালন শাহ কলেজে ভর্তি হয়। ২০১৩ সালে কলেজে সর্বোচ্চ রেজাল্ট জিপিএ ৪.৯০ পায়। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ার ইচ্ছা হল।

বাবাকে কোনমতে রাজি করিয়ে ঝিনাইদহে কোচিং করার জন্য যাই ।সেখানেও কোচিং এর স্যারদের সহায়তায় আমি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়(৫৪৭), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়(১৯৮৮) ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ( আইন ও ইংরেজি) চান্স পাই।

পরিবারের ইচ্ছাতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হয়। সবকিছু টিউশনি করে ভালভাবেই চলছিল। ২য় বর্ষ (৩.১১ও ৩.২১) শেষে আমার জীবনে নেমে আসে অশনি সংকেত।

ডাক্তার বলে আমার দুইটা কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে। জীবনের সব চেষ্টা যেন বৃথা হয়ে গেল।স্বপ্ন ছিল অন্তত বিসিএসের ভাইভা বোর্ড পর্যন্ত যাওয়ার। জীবনে চলে আসল মরণব্যাধি ডায়ালাইসিস। যা আার শেষ হল না। কিন্ত শেষ হল একটা জীবনের স্বপ্ন এবং সর্বশান্ত হল আমার পরিবার।

আরও পড়ুন: সুন্দরবনে অনুমতি ছাড়া ড্রোন উড়ালে পর্যটকদের জরিমানা

এখন আমি পরিবারের নিকৃষ্ট সদস্য। আমার জন্য আমার পরিবার  এখন ধ্বংসের পথে প্রায়। আমার বাবা একজন কৃষক ও বিলে মাছ ধরে সংসার চালান। আমার ও পরিবারের স্বপ্ন পরিবারের হাল ধরা।

কিন্তু ২০১৬ সাল থেকে কিডনী জটিলতায় আমার ও পরিবারের স্বপ্ন এখন মৃত প্রায়। আমিও জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে দাঁড়িয়ে। অসুস্থতার শুরু থেকেই আমার পরম শ্রদ্ধেয় শিক্ষক-সহপাঠী-বন্ধু-স্বজন পাশে থেকে সহযোগিতা ও সাহস যুগিয়ে আমাকে বাঁচার স্বপ্ন দেখিয়ে গেছেন। তাদের সবার প্রতি অসীম কৃতজ্ঞতা। বর্তমানে অনেকের উৎসাহে আমার বাঁচার স্বপ্নটা আরো বড় হয়েছে।

আপনারা ইতিমধ্যে জানতে পেরেছেন আমি কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য প্রস্তুুতি গ্রহণ করেছি এবং আলহামদুলিল্লাহ ডোনারের সাথে কিডনি ম্যাচ হয়েছে। খুব দ্রুতই ইন্ডিয়াতে কিডনি অপারেশন করতে হবে। কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য সর্বমোট প্রায় ২০লাখ টাকা প্রয়োজন যা বহন করা আমার পরিবারের পক্ষে একেবারেই অসম্ভব। তাই আমি আবারও আপনাদের সহযোগিতা কামনা করছি।

আমি বাঁচতে চাই। আল্লাহর রহমতে ও আপনাদের সাহায্যের মাধ্যমে আমি এই সুন্দর পৃথিবীতে আরো কিছুদিন বাঁচতে চাই। এই বিশাল অংকের অর্থ আমার দরিদ্র পরিবারের পক্ষে সংগ্রহ করা একেবারেই অসম্ভব। কিন্তু আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আপনাদের সহযোগিতা পেলে সেই অসম্ভব সম্ভব হতে পারে। আপনাদের সহযোগিতা পেলে মহান সৃষ্টিকর্তা আমার প্রার্থনা কবুল করতেও পারেন। আপনাদের সবার সহানুভূতি ও সহযোগিতা একান্তভাবে কামনা করছি।

ইবি শিক্ষার্থী সোহেল রানার সাথে যোগাযোগ করার মাধ্যম: মোবাঃ 01743700547

যে ভাবে ইবি শিক্ষার্থী সোহেল রানাকে সাহ্যায করতে পারবেন যোগাযোগ:
01743700547 (বিকাশ)                                                  017437005478 ( রকেট)                                        01915519487(নগদ)

অথবা ডাচ্-বাংলা 7017015485495( এজেন্ট ব্যাংকিং)।
সোনালী ব্যাংকঃ 2405901012932 ব্রাঞ্চঃ হরিনাকুন্ডু,ঝিনাইদহ।

বিডি প্রভাত/আরকে